logo
ঢাকাবুধবার , ২৩ ডিসেম্বর ২০২০
  1. অর্থনীতি-ব্যবসা
  2. আইন ও আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আবহাওয়া
  5. করোনা
  6. ক্যাম্পাস
  7. ক্রয় বিক্রয়
  8. খেলা
  9. গ্রামবাংলা
  10. চাকরি চাই
  11. জাতীয়
  12. জীববৈচিত্র
  13. তথ্যপ্রযুক্তি
  14. ধর্ম
  15. নির্বাচন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মাছ খাওয়া কেন স্বাস্থ্যকর?

স্বাস্থ্য ডেস্ক | দৈনিক বিবর্তন
ডিসেম্বর ২৩, ২০২০ ১২:৪৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আমিষের অন্যতম একটি উৎস মাছ। বাঙালি মাছ খেতে খুব ভালবাসে। আবার বাংলাদেশ নদীমাতৃক হওয়ায় মাছের অভাব নেই বললেই চলে। তাই তো বলা হয় ‘মাছে ভাতে বাঙালি’।

তবে কেউ কেউ অবশ্য মাছ খেতে চান না। বিশেষ করে বাচ্চারা মাছ খেতে পছন্দ করে না। তবে সব বয়সের মানুষের জন্য মাছ একটি দারুণ পুষ্টিকর খাবার। গর্ভবতী মায়েদের জন্যও মাছে রয়েছে বিশেষ উপকারীতা।

কারণ আমরা সবাই জানি আমাদের এই প্রিয় খাদ্যটি স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। কিন্তু মাছ খাওয়ার কি কোনো ধরণের স্বাস্থ্য ঝুঁকি আছে? আসুন জেনে নিই মাছ কতটা স্বাস্থ্যকর।

মাছে ধাতব পদার্থের পরিমাণ বাড়ছে

পানি দূষণের ফলে মাছে বিদ্যমান ধাতব পদার্থ ও ক্যামিকেলের পরিমাণ বাড়ছে। এছাড়াও অনেক সময় বিষাক্ত পদার্থ দ্বারা মাছ সংরক্ষণ করা হয়, যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

ইন্ড্রাস্টিতে ব্যবহৃত পোলিক্লোরিনেটেড বাইফেনাইলস (পিসিবিএস) নামক ক্ষতিকর ক্যামিকেল মানব দেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। বর্তমানে পানি কিংবা পোল্ট্রিতে এই ক্যামিকেলের মাত্রা আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। মৎসপ্রেমীদের জন্য দুঃসংবাদ হলো, মাছে বিদ্যমান পিসিবিএসের মাত্রা পানি কিংবা পোল্ট্রির থেকেও বেশি।

এছাড়াও পানি দূষণের ফলে মাছে সিসার পরিমাণও বৃদ্ধি পেয়েছে। মাছ চাষের সময় মাছকে যে খাদ্য দেয়া হয়, তা থেকেও মাছে অনেক ক্ষতিকর পদার্থ পুঞ্জিভূত হয়ে থাকে।

মাছে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাটি এসিড রয়েছে

মাছে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা-৩ ইপিএ এবং ডিএইচএ ফ্যাটি এসিড থাকে, যা মানব স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান। ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড হৃদপিণ্ডের স্বাস্থ্যের জন্য ইতিবাচক। সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক গবেষণায় দেখা গেছে, সাপ্লিমেন্ট গ্রহণ করে যে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড পাওয়া যায় তা মাছ থেকে গ্রহণ করার মতো কার্যকর নয়।

মস্তিষ্কের জন্য উপকারী

মাছ মস্তিষ্কের স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী। এতে ফ্যাটি এসিড ছাড়াও সেলেনিয়াম ও আয়োডিন থাকে। সেলেনিয়াম মস্তিষ্কের কোষগুলিকে সংক্রমণ এবং ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করে, অন্যদিকে স্বাস্থ্যকর বিপাকক্রিয়ার জন্য আয়োডিন প্রয়োজনীয়।

ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি স্কুল অব মেডিসিনের রেডিওলোজি এন্ড নিউরোলোজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সাইরাস রাজি এ বিষয়ে বলেন, ‘আমাদের মস্তিষ্কের পরিমাণ আমাদের স্বাস্থ্য ও রোগের দ্বারা পরিবর্তিত হতে থাকে। যত বেশি নিউরন থাকবে মস্তিষ্ক ততবেশি কার্যকর থাকবে। মাছে বিদ্যমান পুষ্টি উপাদান মস্তিষ্কের নিউরন বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।’

খাদ্য হিসেবে মাছ নিঃসন্দেহে স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। তবে দূষণ ও ভেজালের ফলে এর মধ্যে নানা বিষাক্ত পদার্থ প্রবেশ করছে যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে।

তথ্যসূত্র: বিবিসি

দৈনিক বিবর্তন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।