logo
ঢাকাশনিবার , ৭ আগস্ট ২০২১

মাতুয়ারা বেগমের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন এসপিবিএন-১ এর পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান

জাহিদ হাসান মিলু, ঠাকুরগাঁও
আগস্ট ৭, ২০২১ ১০:৫০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ঠাকুরগাঁও জেলার রাণীশংকৈল উপজেলার হোসেনগাঁও ইউনিয়নের হাড়ীয়া গ্রামের আব্দুল খালেক এর স্ত্রী মাতুয়ারা বেগম (৪৮)। দীর্ঘ দিন থেকে বিরল রোগে আক্রান্ত হয়ে এক পা হাড়িয়েছেন তিনি। এতে এখন তার জীবনটাই কাল হয়ে দাড়িয়েছে। ঠিকভাবে নড়া চড়া করতে পারেন না তিনি। তবে কৃত্রিম পা লাগিয়ে অনেকটা স্বাভাবিক জীবনে ফেরার আশঙ্কা আছে তার। আর সেই জন্য প্রয়োজন প্রায় ৫০ হাজার টাকা।

গত কয়েক দিন আগে মাতুয়ারা বেগমের চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহযোগিতা চেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুক) বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় শাখার বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হল ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ জেড এম বর্নী তার আইডিতে পোষ্ট করেন।

এ জেড এম বর্নী’র এমন পোষ্ট ঠাকুরগাঁওয়ের সাবেক পুলিশ সুপার মোহাঃ মনিরুজ্জামান ও বর্তমান পুলিশ সুপার, (কমান্ডার) সিকিউরিটি এন্ড প্রটেকশন ব্যাটালিয়ন-১ (এসপিবিএন-১) ঢাকা, বাংলাদেশ এর নজরে পড়লে তিনি মাতুয়ারা বেগম এর যাবতীয় চিকিৎসার খরচ বহন করার কথা জানান বলে জানিয়েছেন এ জেড এম বর্নী।

মাতুয়ারা বেগম এর ছোট ছেলে জসিম জানান, দীর্ঘ আট মাস আগে হটাৎ করে পায়ে ব্যাথা অনুভব হলে হাটতে হাটতে পড়ে যায় তার মা। পরে দুই মাস যাবত রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে তার মায়ের চিকিৎসা করালেও পা ভালো না হওয়ায় গত ছয় মাস আগে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল এর ডাক্তারের পরামর্শে তার মায়ের বাম পা কেটে ফেলা হয়।

জসিম আরও জানান, এমন করে আমার মায়ের চিকিৎসার জন্য প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ টাকা খরচ করি আমরা। এখন ডাক্তার বলেছেন, কৃত্রিম পা লাগালে আবার আমার মা স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে পারবেন। কিন্তু তার জন্য অনেক অর্থের প্রয়োজন। সেই অর্থ নেই আমাদের। তাই অনেকের কাছে সহযোগিতা চেয়েছি। ইতিমধ্যে আমাদের পাশের গ্রামের বর্নী আপা দুই হাজার টাকা সহযোগিতা করে এবং আরও সহযোগিতার জন্য ফেসবুকে পোষ্ট করেন। সেই পোষ্ট দেখে মোহাঃ মনিরুজ্জামান স্যার আমার মায়ের চিকিৎসার জন্য সব খরচ দিতে চেয়েছেন ।

আমার মায়ের জন্য এমনভাবে একাই কেউ সহযোগিতা করবেন তা আমি ভাবতেও পারিনি। তাই অনেক অনেক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই মনিরুজ্জামান স্যারকে।

এমন সহযোগিতার কথা শুনে মাতুয়ারা বেগম খুশিতে আত্মহারা হয়ে বলেন, আমি আমার সন্তানের জন্য আল্লাহর কাছে যা চাই একইভাবে আল্লাহর কাছে মনিরুজ্জামান স্যারের জন্য দোয়া করবো। আল্লাহ তাকে দীর্ঘায়ু করুক ও সবসময় ভালো রাখুক।

অন্যদিকে এ জেড এম বর্নী বলেন, মনিরুজ্জামান স্যারকে কৃতজ্ঞতা জানানোর ভাষা নেই। তাঁর মতো জনদরদী মানুষ আমাদের সমাজে অনেক অনেক প্রয়োজন। আমি চেয়েছিলাম সবাই একটু একটু করে সাহায্যে করবে। কিন্তু মনিরুজ্জামান স্যার একাই এতো বড় সাহায্যের ঘোষণা দিবেন, যা অভাবনীয়।

এবিষয়ে শুক্রবার (০৬ আগস্ট) রাতে এসপিবিএন-১ এর অধিনায়ক পুলিশ সুপার মোহাঃ মনিরুজ্জামান মুঠো ফোনে জানান, এমন একজন মহিলা অসহায়ত্বের সঙ্গে যুদ্ধ করছে ফেসবুকে বর্নী’র পোষ্টের মাধ্যমে দেখে মনে খুব পিড়া সৃষ্টি করে। তাই আমি সিদ্ধান্ত নেই একাই মাতুয়ারা বেগমের পায়ের যাবতীয় খচর বহন করবো। ইতিমধ্যে আমি সাভারে অবস্থিত সিআরপি হাসপাতাল ও ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে তার চিকিৎসার জন্য যোগাযোগ করেছি। যেখানে সব চেয়ে পায়ের চিকিৎসা ভালো হবে সেখানে মাতুয়ারা বেগমের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে। এমনকি তার চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে যাতায়াতেরও খরচ বহন করার কথা জানান তিনি।

এছাড়াও সমাজে যারা বিত্তবান আছেন তাদের এমন অসহায় মানুষদের পাশে দাড়ানোর আহ্বান জানান মোহাঃ মনিরুজ্জামান।

দৈনিক বিবর্তন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।