তালতলীতে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ
logo
ঢাকা, বুধবার, ১৫ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১লা জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তালতলীতে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ

বরগুনা প্রতিনিধি
সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২ ১১:৪৪ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

বরগুনার তালতলীতে এক কৃষককে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে মারধরের অভিযোগ উঠেছে স্থানিয় এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে।

বরগুনার তালতলী উপজেলার নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের মেনিপাড়া গ্রামের সেকান্দর আলির ছেলে বজলুকে (১৮ সেপ্টেম্বর) সকালে বাসা থেকে ডেকে মারধর করে জোর করে সাদা কাগজে সই নিয়ে রাস্তায় ফেলে রাখার অভিযোগ উঠেছে ৫ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জসিমের বিরুদ্ধে।

আহত অবস্থায় স্থানীয় লোকজন বজলুকে উদ্ধার করে তালতলী হাসপাতাল পরে পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য আমতলী উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

গতকাল বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকালে চিকিৎসা শেষে এলাকায় সাংবাদিকদের কাছে এসে কৃষক বজলু অভিযোগ করে সকল ঘটনা খুলে বলে এবং অভিযুক্ত বিচার দাবি করে।

ভুক্তভোগে বজলু বলেন , জাল নিয়ে বাড়ি যাওয়ার পথে স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. জসিম আমাকে ডেকে জিজ্ঞেসা বাদ করে বলে এই জাল কার আমি বলি আমার। এ কথা বলার সাথে সাথে তিনি এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে মারধর করার এক পর্যায় বলে তোকে আমরা মারধর করিনি এই মর্মে লিখিত দে আমি লিখিত দিতে রাজি না হওয়ায়। এ সময় ইউপি সদস্য জসিম, নুরুল আলম (তোতা) রাসেল হাওলাদার, জয়নাল মোল্লা, তাদেরকে বলে আমাকে মারধর করতে এরপর তারা-ও আমাকে মারধর করে। জোরকরে সাদা কার্টিজ পেপারে দুইটা স্বাক্ষর নেয়। আর বলে আমরা যে তোকে মারছি এ কথা কাউকে বলবি না যদি বল তাইলে তোর খবর আছে বলে আমাকে রাস্তায় ফেলে রেখে চলে যায়।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য জসিম হাওলাদারের মুঠোফোনে বলেন, ওকে মারধর করা হয়নি ওর বিরুদ্ধে চেয়ারম্যান বরাবর এলাকাবাসী জাল চুরির অভিযোগ দিলে চেয়ারম্যান আমাকে বিষয়টি দেখতে বলে আমি স্থানীয়দের নিয়ে বসে ও আর কখনো চুরি করবে না এই মর্মে লিখিত দিয়ে চলে যায়। আমার প্রতিপক্ষরা ওকে দিয়ে মিথ্যা অভিযোগ করাচ্ছে।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, এখন অভিযোগ পাই নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

দৈনিক বিবর্তন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।